1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
মাগুরার কুমার নদে প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধ কারেন্ট জালে মাছ শিকার, প্রশাসন নিরব | দৈনিক শ্যামল বাংলা
সোমবার, ০২ অগাস্ট ২০২১, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
হাটহাজারীতে আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসকারীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক দৈনিক ডাক প্রতিদিনের সম্পাদক আর নেই। বনানীতে টিবিএল ফুডের প্রথম সাধারন সভা অনুষ্ঠিত খুলল শিল্পকারখানা চাপে শ্রমিকরা __ দ্রুত শ্রমিকদের টিকা দিতে হবে শ্রীনগরে মসজিদের টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ সভাপতি’র বিরুদ্ধে সাংবাদিক হাবিব আল জালালের ইন্তেকাল শ্রীনগরে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মসিউর রহমান মামুন আশুরোগ মুক্তি কামনায় বিশেষ দোয়া মাহফিল চৌদ্দগ্রামে সাংবাদিক সিরাজুল ইসলাম ফরায়েজীর ভাই রফিকুল ইসলামের ইন্তেকাল চৌদ্দগ্রামে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অসহায়দের মাঝে ঢেউটিন ও নগদ অর্থ প্রদান হাটহাজারী গুমানমর্দ্দন ইউনিয়নে নজরুল সংঘ কমিটি গঠন

মাগুরার কুমার নদে প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধ কারেন্ট জালে মাছ শিকার, প্রশাসন নিরব

মাগুরা থেকে মোঃ সাইফুল্লাহ ;
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১
  • ৮২ বার

মাগুরার কুমার নদে প্রশাসনের নাকের ডগায় শ্রীপুর থানার সামনে, কুমার নদ ব্রীজের দু’পাশেসহ কুমার নদের বিভিন্ন জায়গায় ও জেলার বিভিন্ন জলাশয়ে অবৈধ চায়না দোয়াড় ও কারেন্ট জাল ব্যবহার করে অবাধে মাছ শিকার করছে মৎসজীবি ও বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষ।
এভাবে অবৈধ চায়না কারেন্ট জালে অবাধে মাছ শিকার করলে হুমকির মুখে পড়বে মাগুরার মৎস্য খাত ।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় জেলার টেঙ্গাখালী, গাঙনালিয়া, বরিশাট,শ্রীপুর, গোয়ালপাড়া, টুপিপাড়া,খামারপাড়া, বারইপাড়া, শ্রীকোল, জোকা, গয়েশপুর, কাজলি সহ কুমার নদের ১৫০ কি. মি সম্পূর্ন নদের দু-পাড়ে মৎসজীবি এবং বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ অবৈধ চায়না দোয়াড় ও কারেন্ট জাল ব্যবহারের মাছ শিকার করে আসছে।
তাছাড়া জেলার বিভিন্ন জলাশয়েও অবৈধ কারেন্ট জাল ব্যবহার করে অবাধে মাছ করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে গোয়ালপাড়া গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম বলেন, চায়না দোয়াড় ও কারেন্ট জাল অবৈধ। অবাধে এরা এগুলো দিয়ে মাছ শিকার করে। এভাবে মাছ শিকার করলে পরবর্তীতে আমরা মাছ পাবো না।

আলী হাসান নামে অন্য আরেকজন বলেন, যারা জেলে না তারাও মাছ ধরে। চায়নাদের সাপ মারা জালে এমন কোন মাছ নাই যে বাঁধে না। এদের এহনই বন্ধ করতে হবে।

উপজেলা মৎসজীবি সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক শ্রীবাস বিশ্বাস বলেন, আমি অবৈধ চায়না দোয়াড় ও কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ ধরার বিপক্ষে। এভাবে চলতে থাকলে তো আমরা আর মাছ পাবো না। এ অবৈধ জাল দ্রুত বন্ধের জোর দাবি জানাচ্ছি।

মৎসজীবি ও মাছের আড়ৎদারদের নেতা বাবলু বিশ্বাস বলেন, এখনই অবৈধ চায়না জাল দিয়ে মাছ ধরা বন্ধ করতে হবে। আর তাহা না হলে ১-২ বছরের মধ্যে কুমার নদে আর মাছ পাওয়া যাবে না।

চায়না দোয়াড় দিয়ে মাছ ধরা মৎসজীবি খামারপাড়া গ্রামের শৈলেন্দ্রনাথ বিশ্বাস বলেন, আমি জানি এ জাল অবৈধ। আমরা পেটের দায়ে মাছ ধরি। সবাই এ জাল দিয়ে মাছ ধরা বন্ধ করলে আমি ও বন্ধ করে দিবো।

উপজেলা মৎস কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রাজ্জাক জানান, অবৈধ জাল ব্যবহারের মাধ্যমে মাছ ধরার অভিযোগ পেয়েছি। অবৈধভাবে মাছ শিকার বন্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা জরুরি। উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টা অবহিত করবো। আসলে জেলে সম্প্রদায় ও অবৈধভাবে এ চায়না দোয়াড় ও কারেন্ট জাল দিয়ে মাছ শিকার করার বিপক্ষে।

৪ জুলাই ২০২১ রবিবার বিকেলে মাগুরার জেলা প্রশাসক ডক্টর আশরাফুল আলম আমাদের প্রতিনিধিকে জানান-আমরা এখন লকডাউন নিয়ে ব্যস্ত আছি, লকডাউনের পরে মৎস্য পক্ষে অবৈধ চায়না কারেন্ট জাল উচ্ছেদ অভিযানে নামা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম