1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
মৌসুমী ব্যবসা শীতের পোশাক, জমে উঠেছে রাজবাড়ী। - দৈনিক শ্যামল বাংলা
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৫:১১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
আজ রোববার লালমনিরহাট ও কালীগঞ্জ উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন নবীগঞ্জ উপজেলায় ১৩ টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন।। আজ নির্বাচন ৪৮ টি ঝুকিপূর্ন আশুলিয়ায় শাহাবুদ্দিন মাদবরের নির্বাচনী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম জেলা প‌রিষ‌দ টাওয়ারের মূল ভবন নির্মাণ কা‌জের উদ্বোধন রাউজানের সীমান্তবর্তী রাঙ্গামাটি জেলার কাউখালী উপজেলার ডাক্তার ছোলা এলাকায় পাহাড় কাটা হচ্ছে হাটহাজারীর ১৩ ইউনিয়ন পরিষদে ভোট কাল ধর্মপাশায় ৫ম ধাপে ১০টি ইউপিতে হবে নির্বাচন শ্রীনগরে জমি লিখে নিতে সাবেক ইউপি সদস্যের হুমকি” দেশের কোন আইন এই এলাকায় কিছু করতে পারবে না নাছির উদ্দীন এর জনমতে ঈর্ষান্বিত হয়ে তার পরিবারের উপর প্রতিপক্ষের হামলা মোবাইল চুরির অপবাদে বিবস্ত্র করে যুবককে নির্যাতন

মৌসুমী ব্যবসা শীতের পোশাক, জমে উঠেছে রাজবাড়ী।

বিশেষ প্রতিনিধি। রাজবাড়ী।
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২০ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৬ বার

রাজবাড়ীর বেশ কিছু স্থানে শীতের পোশাক বিক্রি করা হয়। এছাড়াও ফুটপাতের বিভিন্ন জায়গায় খন্ডকালীন শীত পোশাক বিক্রি করেন হকাররা।
কোন কোন ব্যবসায়ী শুধু শীতের এই কয়েকটা দিন বেছে নেন ব্যবসার জন্য।পুরাতন কাপড় ব্যবসায়ীরা জানান, ব্যবসায়ীরা প্রতি বছর শীতের সময় মহাজনদের কাছ থেকে গরম কাপড়ের গাইড নিয়ে তা খোলা বাজারে খুচরা বিক্রি করেন । গত বছর ৭ থেকে ৮ হাজার টাকায় একটি কাপড়ের গাইট বা বেল কেনা যেতো। এ বছর একটি গরম কাপড়ের গাইড বা বেল কিনতে ১৪ থেকে ১৬ হাজার টাকা লাগে।

পুরাতন কাপড়ের পাইকারী ব্যবসায়ী কামাল হোসেন বলেন, “শীত উপলক্ষে চীন, তাইওয়ান, জাপান, কোরিয়া ও রাশিয়া থেকে পুরাতন শীতবস্ত্র আসছে। পরিবহন খরচ, ব্যাংক ঋণের কারণে কাপড়ের বেলের দাম বেড়ে গেছে। আমরা পাইকারী বিক্রির জন্য চট্টগ্রাম ও ঢাকা থেকে কাপড়ের বেল করে আনি ও খুচরা ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করি। সবকিছুর দাম বাড়ে ফলে কাপড়ে দামও বাড়ে। ”

আরেক ব্যবসায়ী মিরাজ আলী বলেন, “১০০ কেজি ওজনের এক বেল ছোটদের পুরনো শীত পোশাক চট্টগ্রাম মোকামে সাড়ে ৬ হাজার থেকে ৭ হাজার হাজার টাকা। বড়দের ১০০ কেজি ওজনের এক বেল পোশাকের দাম ৫ হাজার থেকে সাড়ে ৭ হাজার টাকা। ৮০ থেকে ১০০ কেজি ওজনের জ্যাকেট ও সোয়েটারের এক বেলের দাম পড়ছে ৮ হাজার টাকা। এখানে এনে পরিবহন খরচ ও অন্যান্য খরচ মিলিয়ে দাম বেশি পড়ছে। ফলে খুচরা বাজারেও দাম বাড়ছে। ”

খুচরা ব্যবসায়ী সামাদ মিয়া জানান, “একটি গাটে ১০ টাকা থেকে শুরু করে ৬০০ টাকার কাপড়ও থাকে। দামাদামি করে সব দাম ঠিক করতে হয়। তবে প্রতিদিন সাড়ে ৩ হাজার থেকে সাড়ে ৪ হাজার টাকার ওপরে বিক্রি হচ্ছে। বিক্রি শুরু হয়েছে নভেম্বর থেকে যতোদিন শীত থাকবে, ততোদিন বিক্রি কমবে না। ”
শীতের পোশাকের মধ্যে সোয়েটার, মাপলার, কানটুপি, হাতমোজা, মোজা, ট্রাউজার, ব্লেজার, মোটা কামিজ, কম্বল, চাদর, মোটা কাঁথা, মোটা মালসি, গিলাপ, হুইলবেড কাভার ইত্যাদি। ১০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ১০০০ টাকা পর্যন্ত সোয়েটার জাতীয় মোটা কাপড় পাওয়া যাবে। কাঁথা, কম্বল, গিলাপ, বেডকাভার আর মোটা কামিজ সর্বনিম্ন ৩০০ টাকা থেকে ৪০০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে। তবে কোর্ট বা ব্লেজারের সাইজ ও কাপড় অনুযায়ী দাম পড়বে ৫০০ থেকে ১০০ টাকা।
এই শীতে বাচ্চাদেরও বাহারি রকমের পোশাকের সরবরাহ রয়েছে ফুটপাতের দোকানগুলোতে। সর্বনিম্ন ৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৭৫০ টাকার মধ্যে ভালো মানের পোশাক ক্রয় করা যাবে ফুটপাত থেকে। কানটুপি, হাতমোজা, সুয়েটার, পায়ের মোজা, নরম তোশক, ছোটদের কম্বল ইত্যাদি পাওয়া যাবে ফুটপাতে।
রমজান নামে এক বিক্রেতার কাছে জানতে চাওয়া হয় আয় হতে পারে ফুটপাতের শীতকাপড় বিক্রি করে?
রাজধানীর পল্টনে দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে শীতের পোশাক বিক্রি করে আসছেন বিনোদপুরের রমজান আলী। ফুটপাতে শীতের পোশাক বিক্রি করে ৭ জনের সংসার চালাচ্ছেন। তার মত লোকোশেডের আলী আকবর দিদারুলসহ অনেকেই জীবিকা নির্বাহের জন্য এ পথ বেঁচে নিয়েছেন স্বাচ্ছন্দ্যে। প্রতি মৌসুমে খরচ বাদ দিয়ে প্রায় লাখ খানিক টাকা আয় থাকে রমজান আলীর। তবে দিদারুল একটু ভিন্নভাবেই বললেন তার ব্যবসার কৌশল। গত বছর লাভের অংশ বেশি না থাকলেও এবার প্রত্যাশিত বিক্রি হবে তার আশা।
প্রতি গাইট পোশাক খোলার পরে প্রায় ৪০০ থেকে ৫০০টি পোশাক থাকে। গাইট ভালো হলে ৩০০ থেকে ৩৫০টি পোশাক টিকে। বাকিগুলো ফেলে দেন দোকানিরা। গাইট প্রতি কখনো ৭ থেকে ১০ হাজার টাকাও লাভ হয়। তবে এ বিষয়ে চর্ম বিশেষঞ্জ ডাক্তার মাহমুদের সাথে কথা বললে তিনি জানান যা খেয়াল রাখতে হবে।
ফুটপাতে ব্যবহৃত জিনিসই বেশি পাওয়া যাবে। তাই তাতে রোগজীবাণু থাকার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। অন্যের ব্যবহৃত জিনিসটি যত কম দাম দিয়েই ফুটপাত থেকে কিনেন না কেন, ব্যবহারের আগে তা পরিষ্কার করে এবং ভালোভাবে রোদে শুকিয়ে পরিধান করুন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম