1. nerobtuner@gmail.com : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
  2. nrghor@gmail.com : Nr Gh : Nr Gh
  3. info@shamolbangla.net : শ্যামল বাংলা : শ্যামল বাংলা
লালমনিরহাটে গ্রামীন ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রাখতে কাগজের ফুল তৈরি করে এব্যবসায় সাফল্যর মুখ দেখছেন শফিকুল ইসলাম - দৈনিক শ্যামল বাংলা
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০২:০৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম:
মোটরসাইকেল শোডাউনের মাধ্যমে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হারুনুর রশিদ রঙ্গু’র পূজামন্ডপ পরিদর্শন মাগুরায় নির্বাচনী সহিংসতায় দু পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ!! নিহত -৪ আহত -২০ লাকসামে রাজনীতির প্রতিহিংসায় গাছের সাথে শত্রুতা! রাউজানে সুষ্ঠ ও শান্তিপুর্ণ ভাবে সনাতনী ধর্মীয় অনুসারীদের শারদীয় দুর্গোৎসব সম্পন্ন নবীনগরে উপজেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উদযাপন কুবির দত্ত হলে জুনিয়র ছাত্রলীগ কর্মীরা মারধর করে সিনয়রকে সাঈদ হাসান,কুবি রাউজানে সব ধর্মের মানুষ অসম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী-পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনে এমপি ফজলে করিম নবীগঞ্জে শেখ রাসেল দিবস পালন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত আমিলাইষের পূজামণ্ডপে আলহাজ্ব মোজাম্মেল হক চৌধুরীর আর্থিক অনুদান ও কাপড় বিতরণ রিদওয়ান খালিদ চোধুরীর জন্মদিন আজ

লালমনিরহাটে গ্রামীন ঐতিহ্যকে টিকিয়ে রাখতে কাগজের ফুল তৈরি করে এব্যবসায় সাফল্যর মুখ দেখছেন শফিকুল ইসলাম

লাভলু শেখ স্টাফ রিপোর্টার লালমনিরহাট।
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৪৩ বার

দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে, গন্ধহীন কাগজের রংবেরং এর বিভিন্ন ফুল বানিয়ে সংসার চালিয়ে আসছেন লালমনিরহাটের শফিকুল ইসলাম। তার কাছে কগজের ফুল বানানো শিখে অনেকেই এখন স্বাবলম্বী। পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বাচ্চাদের খেলনা আর ঘর সাজানোর এ উপকরণ, বেকারত্ব দূর করার পাশাপাশি বাঙালির ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে সহায়তা করবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
লালমনিরহাট সদর উপজেলার নওদাবস ভোলার চওড়া গ্রামের শফিকুল ইসলাম।
আসন্ন দুর্গাপূজার মেলাকে সামনে রেখে এখন বড় লাইট ফুল, ছোট লাইট ফুল, আবার বড় পাখা ফুল, ছোট পাখা ফুল এমন অনেক ফুল তৈরীতে ব্যস্ত এখন শফিকুলের কারখানার কারিগররা।
কারখানাতো নামে মাত্র , মূলত শফিকুলের থাকার ঘড়েরেই সাদা কাগজকে কেটে বিভিন্ন আকার দেওয়ার জন্য রাখা ডাইসসহ ওই ফুল বানানোর নানা উপকরণ রাখা হয়েছে।
আর ফ্যাক্টরীর কার্যক্রম পরিচালনা হয় খোলা আকাশের নিচেই। কর্মচারীদের তালিকায় স্ত্রী, ২ ছেলে ছাড়াও প্রতিবেশী নারী ও পুরুষেরা।
সাদা কাগজে বাহারি রং লেপে বিশেষ কায়দায় তা কেটে দক্ষ হাতের নিপুন ছোঁয়ায় কয়েক স্তরের প্রক্রিয়া শেষে বাজারজাতকরণের উপযোগী হয়ে শোভা পায় গ্রামবাংলার বিভিন্ন মেলার দোকানে দোকানে। শুধু দুর্গা পুজার মেলাতে নয়। সারা বছর এ ফুলের যথেষ্ট চাহিদা আছে বলে দাবি শফিকুলের। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সাজসজ্জা, সনাতন ধর্মাবলম্বীদে বিভিন্ন আচার অনুষ্ঠানে ব্যাবহার রয়েছে গন্ধ ছাড়া হাতে তৈরি এ কাগুজে ফুলের।
সরকারী বেসরকারি পৃষ্ঠপোষক প্রত্যাশী এ উদ্যোগতার এই ব্যবসা ছিলো রাজধানী ঢাকায়, সেখানে কারখানা ভাড়া বৃদ্ধি ও নানা অভাবে এখন গ্রামেই পুরোদমে এই কাগুজে ফুল উৎপাদন হচ্ছে। স্থানিয় ও ঢাকার মহাজনদের চাহিদা মেটাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে পুঁজি কম থাকায়।
শফিকুল স্বপ্ন দেখে সরকারি ও বেসরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে স্থানিয় অনেক বেকারদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে তার এই কারখানায়।
আর শফিকুলের স্বপ্ন পুড়ন করে গ্রামীন এ সকল ঐতিহ্য টিকিয়ে রাখতে সহযোগীতা করবে সংশ্লিষ্টরা এমন প্রত্যাশা সকলের।

নিউজটি শেয়ার করুন..

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2022 TechPeon.Com
ডেভলপ ও কারিগরী সহায়তায় টেকপিয়ন.কম